নটর ডেম বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশ-এর প্রথম সমাবর্তন অনুষ্ঠিত

 প্রকাশ: ২০ ডিসেম্বর ২০১৯, ০৬:৪২ অপরাহ্ন   |   শিক্ষা

নটর ডেম বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশ-এর প্রথম সমাবর্তন অনুষ্ঠিত

নটর ডেম বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশের প্রথম সমাবর্তন বুধবার বিশ্ববিদ্যালয়টির নিজস্ব ক্যাম্পাসে অনুষ্ঠিত হয়েছে। সমাবর্তনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি, এমপি। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের চেয়ারম্যান ড. কাজী শহীদুল্লাহ। সমাবর্তন বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের কিংস কলেজের সাবেক প্রেসিডেন্ট ড. ফাদার টমাস জে ও’হারা। সমাবর্তন অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন এনডিইউবি বোর্ড অব ট্রাস্টিজ-এর চেয়ারম্যান ফাদার জেমস ক্রুজ, সিএসসি, মহামান্য কার্ডিনাল প্যাট্রিক ডি’রোজারিও, সিএসসি, ভ্যাটিকানের রাষ্ট্রদূত আর্চবিশপ জর্জ কোচেরী, রাজশাহী ধর্মপ্রদেশের ধর্মপাল বিশপ জের্ভাস রোজারিও, এনডিইউবি-এর কোষাধ্যক্ষ ফাদার যোসেফ এস, পিশাতো, সিএসসি, রেজিস্ট্রার ফাদার আদম এস, পেরেরা, সিএসসি, বোর্ড অব ট্রাস্টিজ-এর সদস্যবর্গ, সিন্ডিকেট ও অ্যাকাডেমিক কাউন্সিল-এর সদস্যবৃন্দ, বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের আমন্ত্রিত উপাচার্যগণ, বাংলাদেশে নিয়োজিত বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রদূতবৃন্দ, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষবৃন্দ, সমাজের নেতৃবর্গ, ব্রতধারী-ব্রতীধারিণীবৃন্দ সহ সম্মানিত অতিথিবৃন্দ।

সমাবর্তনে ৫৩৬ জনকে স্নাতক ডিগ্রি দেওয়া হয়। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন নটর ডেম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. ফাদার প্যাট্রিক ডি’ গ্যাফনি। তিনি বলেন, “আমরা এমন একটি অসাধারণ অনুষ্ঠান প্রত্যক্ষ করছি যেটি যুগ ও কাল-কে ছাপিয়ে গিয়েছে। এই অনুষ্ঠানে যে সকল ¯œাতক অংশগ্রহণ করছে তাদের হৃদয়ে এই সমাবর্তন স্মৃতির মনিকোঠায় খোদিত হয়ে থাকবে।”

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে একদিকে যেমন দক্ষ ও যোগ্য নাগরিক তৈরি করতে হবে, তেমনি তাদের মানবিক গুণাবলি ও সৃজনশীলতার বিকাশ ঘটাতেও সক্ষম হতে হবে। শিক্ষাঙ্গন ও শিল্পের মধ্যে সমন্বয় ঘটাতে পারলে স্নাতকদের ও চাকরিদাতাদের পারস্পরিক প্রত্যাশা ও প্রাপ্তির মধ্যেও দূরত্ব ঘুচে যাবে। নটর ডেম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম সমাবর্তন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন শিক্ষামন্ত্রী।

তিনি বলেন, এটা আজ স্পষ্ট যে, শিক্ষাঙ্গনকে মাদক, সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, উগ্রবাদ এবং যে কোনো ধরনের নির্যাতন, নিপীড়ন মুক্ত রাখতে শিক্ষার্থী, শিক্ষক, বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন, সরকার ও অভিভাবকদের সজাগ, সতর্ক ও সক্রিয় থাকতে হবে। সমন্বিত উদ্যোগ নিতে হবে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো যেন হয়ে ওঠে জ্ঞান, বিজ্ঞান, সাহিত্য, সংস্কৃতি, ক্রীড়া ও সুকুমার বৃত্তি চর্চার পীঠস্থান।

মন্ত্রী আরও বলেন, ডেমোগ্রাফিক ডিভিডেন্ডের সর্বোচ্চ সুবিধা নিতে উপযুক্ত পরিবেশ তৈরি করতে না পারলে এই সুযোগ এক পর্যায়ে বিপর্যয় হয়ে দেখা দেবে দেশের জন্য।নির্ভরশীল জনগোষ্ঠী বেড়ে যাবে, কর্মক্ষম জনগোষ্ঠী কমে যাবে, খরচ বাড়বে, সঞ্চয় কমবে এবং বয়স্ক লোকের সংখ্যা বাড়বে। ফলে কম লোক উপার্জন করবে আর অধিক লোক তাদের উপার্জনের ওপর নির্ভরশীল থাকবে।ভিশন-২০২১, এসডিজি লক্ষ্য অর্জন, সপ্তম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনার লক্ষ্যমাত্রা প‚রণ এবং ভিশন-২০৪১ অর্জন করতে তথা সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়তে ডেমোগ্রাফিক ডিভিডেন্ডের সুফল গ্রহণের বিকল্প নেই।

সমাবর্তন বক্তা কিংস কলেজ, ইউএসএ-এর প্রেসিডেন্ট ড. ফাদার টমাস জে ও’হারা তাঁর বক্তব্যে বলেন, এনডিইউবি-এর সকল ¯œাতকদের আমি আমার হৃদয়ের অন্তঃস্থল থেকে জানাই আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন। পড়াশোনার পাঠ চুকে যাওয়ার পর তোমরা সকলে এমন এক ভবিষ্যতের দিকে পা বাড়িয়েছ যেখানে আগামী বছরগুলোতে চ্যালেঞ্জ এবং সুযোগ এই দুইয়ের মুখোমুখি হবে যা তোমাদের দক্ষতা এবং ধৈর্য্যরে পরীক্ষা নেবে; এবং নিঃসন্দেহে আগামী বছরগুলোতে অনেক অনেক বিস্ময় তোমাদের জন্য অপেক্ষা করছে।”

বাংলাদেশে নিযুক্ত ভ্যাটিকানের রাষ্ট্রদূত আর্চবিশপ জর্জ কোচেরী তাঁর শুভেচ্ছা বাণীতে বলেন, “শিক্ষা মানুষের ব্যক্তিত্ব গঠন প্রক্রিয়ার এক অবিচ্ছেদ্য অংশ। জ্ঞান বিতরণের পাশাপাশি এটি জ্ঞান সম্পর্কে তথ্যও প্রদান করে এবং এটি আমাদের মূল্যবোধ, চিন্তাশক্তি এবং সঠিক সিদ্ধান্ত গ্রহণের ক্ষমতাও গড়ে তোলে। এই বিশ্ববিদ্যালয় নিশ্চিত ভাবেই শিক্ষার্থীদেরসুনির্দিষ্ট বিভাগে শিক্ষাদানের মাধ্যমে এই বিষয়গুলি জানানোর জন্য সচেষ্ট আছে।”

নটর ডেম বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার ফাদার আদম এস, পেরেরা, সিএসসি বলেন, “২০১৩ খ্রিষ্টাব্দের ২৯ এপ্রিল গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার ও বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন কর্তৃক অনুমোদনপ্রাপ্ত এবং ২০১৪ খ্রিষ্টাব্দের ৪ ডিসেম্বর ৩০২ জন শিক্ষার্থী নিয়ে শিক্ষা কার্যক্রম শুরু করা বিশ্ববিদ্যালয়টির এই যুগান্তকারী অর্জন প্রত্যক্ষ করা আমাদের জন্য গর্বের বিষয়।”

তিনি আরও বলেন, শিক্ষাসেবায় নটর ডেম একটি বিশ্বস্ত নাম। বিগত ৭০ বছর ধরে নটর ডেম বাংলাদেশে শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনা করছে। এখানে ছেলে ও মেয়ে উভয়ই পড়ার সুযোগ পাচ্ছে।

নটর ডেম বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের জন্য প্রথম সমাবর্তন সবার জন্য আনন্দ ও গৌরবের বিষয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম সমাবর্তনে বর্তমান ও সাবেক শিক্ষার্থীদের মধ্যে আনন্দ ও মহামিলনে পরিণত হয়। বর্তমানে এই বিশ্ববিদ্যালয়ে স্প্রিং ২০২০ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থীদের ভর্তি কার্যক্রম চালু রয়েছে। ২০১৩ খ্রিস্টাব্দের ২৯ এপ্রিল প্রয়াত ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য ফাদার বেঞ্জামিন কস্তা, সিএসসির নেতৃত্বে এই বিশ্ববিদ্যালয়ের যাত্রা শুরু হয়। বর্তমানে বহুভাষাবিদ প্রফেসর ড. ফাদার প্যাট্রিক ড্যানিয়েল গ্যাফনি, বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য, ফাদার জে এস, পিশাতো, সিএসসি ট্রেজারার এবং ফাদার জেমস ক্রুজ, সিএসসি বোর্ড অব ট্রাস্টিজের চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। দক্ষ, মেধাবী ও সৃজনশীল শিক্ষার্থীরাই পারে দেশকে বিশ্বদরবারে সম্মানের আসনে বসাতে। নটর ডেম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে উত্তীর্ণ হওয়া শিক্ষার্থীরা দেশের ভাবমর্যাদা উজ্জ্বল করবেন সমাবর্তন থেকে এমনটাই প্রত্যাশা বিশ্ববিদ্যালয় পরিচালনায় জড়িত সংশ্লিষ্টদের।

 

শিক্ষা এর আরও খবর: