দশ টাকা কেজি দরে চাল বিক্রিতে দুর্নীতি প্রমাণ পাওয়ায় ডিলারশিপ বাতিল

 প্রকাশ: ১৫ এপ্রিল ২০২০, ১১:০৯ পূর্বাহ্ন   |   আইন-আদালত-অপরাধ

দশ টাকা কেজি দরে চাল বিক্রিতে দুর্নীতি প্রমাণ পাওয়ায় ডিলারশিপ বাতিল

শামীম খান (গৌরীপুর, ময়মনসিংহ) :

সরকারের খাদ্যবান্ধব কর্মসূচী ১০ টাকা কেজি চাল বিক্রিতে ব্যাপক দুর্নীতি প্রমাণিত হওয়ায় ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলার ২ নং ইউনিয়নের আওয়ামীলীগ নেতা পরিবেশক রুকুনুজ্জামান পল্লবের জামানত বাজেয়াপ্তসহ ডিলাশিপ বাতিল করা হয়েছে। মঙ্গলবার (১৪ এপ্রিল) বিকেলে এ বিষয়টি নিশ্চিত করেন উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক বিপ্লব কুমার সরকার।

স্থানীয় লোকজন জানান, ২ নং গৌরীপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক রুকুনুজ্জামান পল্লব আরিয়ান ট্রেডার্সের প্রোপাইটর কারচুপির মাধ্যমে স্থানীয় অর্ধশতাধিক হতদরিদ্রের কার্ডের বরাদ্দকৃত চাল প্রায় চার বছর ধরে কালোবাজারে বিক্রি করে আসছিলেন। এ ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের অর্ধশতাধিক মানুষ এ কর্মসূচীর তালিকাভুক্ত হওয়ার বিষয়টি তারা জানতেন না। চলতি বছর ডিলারের দোকানের সামনে উপকারভোগীদের তালিকা সাঁটানোর ফলে চার বছর পর জানতে পারেন তারা এ কর্মসূচীর তালিকাভুক্ত উপকারভোগী।

নিজের কাছে কার্ড রেখে চার বছর ধরে অর্ধশত কার্ডের বিপরীতে বরাদ্দকৃত চাল গোপনে কালোবাজারে বিক্রি করে আসছিলেন ডিলার পল্লব। দুর্নীতির ঘটনা জানাজানি হলে ভুক্তভোগী হতদরিদ্ররা ডিলারের দোকান ঘেরাও করে বিক্ষোভের পর শনিবার (১১ এপ্রিল) উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর লিখিত অভিযোগ করেন।

এদিকে এ দুর্নীতির ঘটনাটি বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত হলে স্থানীয় প্রশাসনের টনক নড়ে। এ নিয়ে স্থানীয় সচেতন মহলে সংশ্লিষ্ট ডিলারের বিরুদ্ধে শুরু হয় নানা সমালোচনা।

উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক বিপ্লব কুমার সরকার জানান, ভুক্তভোগী হতদরিদ্রদের লিখিত অভিযোগের প্রেক্ষিতে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচীর সভাপতি উপজেলা নির্বাহী অফিসার সেঁজুতি ধরের নির্দেশে সোমবার উল্লেখিত ডিলারকে ২৪ ঘন্টার মধ্যে কারন দর্শানোর নির্দেশ দেন তিনি। পরে ডিলারের জবাব সন্তোষ জনক না হওয়ায় ও তদন্তে অভিযোগ প্রমাণিত হলে মঙ্গলবার বিকেলে জামানত বাজেয়াপ্তসহ ওই ডিলারের ডিলারশিপ বাতিল করেন তিনি।