ই-পেমেন্টে ভাতা মিলবে সমাজসেবা অধিদফতরের

 প্রকাশ: ২০ মার্চ ২০২০, ০৪:৩৫ অপরাহ্ন   |   বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

ই-পেমেন্টে ভাতা মিলবে সমাজসেবা অধিদফতরের

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষ বা মুজিববর্ষে সমাজসেবা অধিদফতরের ভাতা ই-পেমেন্টে পাওয়া যাবে। সুবিধাভোগীদের কষ্ট লাঘব এবং সরকারি ভাতা পৌঁছে দেয়ার কাজে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে বিশ্বব্যাংকের আর্থিক সহায়তায় ক্যাশ ট্রান্সফার মর্ডানাইজেশন প্রকল্প হাতে নেয়া হয়। গভর্নমেন্ট-টু-পিপল (জি-টু-পি) পদ্ধতিতে প্রকল্পটি ২০২৩ সালের মধ্যে বাস্তবায়নের কথা থাকলেও মুজিববর্ষ উপলক্ষে তা চলতি বছরেই বাস্তবায়ন হতে যাচ্ছে। এতে সময় ও হয়রানি দুটিই লাঘব হবে ভাতাভোগীদের। এ বিষয়ে সমাজসেবা অধিদফতরের মহাপরিচালক শেখ রফিকুল ইসলাম বলেন, সরকারি ভাতা সুবিধাভোগীদের কাছে পৌঁছে দিতে এ উদ্যোগ গ্রহণ করেছি। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষে দেশের ৭৭ লাখ ভাতাভোগীর মুখে হাসি ফোটাতে চলতি বছরের মধ্যেই ই-পেমেন্ট নিশ্চিতের পদক্ষেপ নিয়েছি। তিনি বলেন, মুজিববর্ষে সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচি এবং পরিকল্পনা ও উন্নয়ন কর্মসূচি পরিপূর্ণ বাস্তবায়ন করে অসহায় মানুষের মুখে হাসি ফোটাতে পারলেই বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবর্ষ সফল হবে।


মুজিববর্ষের পরিকল্পনা নিয়ে সমাজসেবা অধিদফতরের ৫, ১২ ও ২৫ ফেব্রুয়ারির বৈঠকের সিদ্ধান্ত থেকে জানা যায়, মুজিববর্ষে সুবিধাভোগীদের ই-পেমেন্ট নিশ্চিত করা, স্বামী পরিত্যক্ত ও বিধবা মহিলাদের সম্পূর্ণ ডাটাবেজ তৈরি, এক লাখবার পরিত্র কোরআন খতমসহ বেশ কিছু পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে।


মুজিববর্ষ উপলক্ষে এসব প্রকল্প বাস্তবায়ন তিন বছর আগেই চলতি বছরের মধ্যে সম্পন্ন এবং সব সেবাভোগীর ই-পেমেন্ট নিশ্চিত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে অধিদফতর। ই-পেমেন্ট বাস্তবায়ন হলে ঘরে বসেই মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে ভাতা পাবেন সুবিধাভোগীরা।


অধিদফতর সূত্রে জানা গেছে, মুজিববর্ষে স্বামী পরিত্যক্ত ও বিধবা নারীদের কর্মক্ষম করে গড়ে তোলার পরিকল্পনাও রয়েছে সমাজসেবা অধিদফতরের। এ লক্ষ্যে একটি ডাটাবেজ তৈরির নির্দেশনা দিয়েছেন মহাপরিচালক শেখ রফিকুল ইসলাম। ডাটাবেজে এসব নারীর বয়স ও শিক্ষাগত যোগ্যতাও অন্তর্ভুক্ত রাখার সিদ্ধান্ত হয়। এর ফলে নারীদের উপযুক্ত কর্মমুখী প্রশিক্ষণ দেয়া সম্ভব হবে।


এসব কর্মসূচির পাশাপাশি মুজিববর্ষ উপলক্ষে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ ব্রেইল আকারে প্রকাশের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এরই মধ্যে বইয়ের ছাপার কাজ শেষ হয়েছে।


আগামী ২ এপ্রিল বিশ্ব অটিজম সচেতনতা দিবসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বইটির মোড়ক উন্মোচন করার সম্ভাবনা রয়েছে। এছাড়া দেশের সব সমাজসেবা কার্যালয় ও অধীনস্থ প্রতিষ্ঠানে মুজিব কর্নার স্থাপন, বঙ্গবন্ধুর স্মরণে রচনা, সাংস্কৃতিক ও নৃত্য প্রতিযোগিতা, শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব পল্লী সমাজসেবা প্রশিক্ষণ কেন্দ্র উদ্বোধনসহ বছরব্যাপী বিভিন্ন কর্মসূচি হাতে নিয়েছে সমাজসেবা অধিদফতর।



বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি এর আরও খবর: